দীর্ঘ সাত মাস পর পবিত্র ওমরাহ পালন শুরু হল

প্রকাশিত: ৫ই অক্টোবর ২০২০ ০৯:৪৬:৪৬ | আপডেট: ৫ই অক্টোবর ২০২০ ০৯:৪৬:৪৬ 16
দীর্ঘ সাত মাস পর পবিত্র ওমরাহ পালন শুরু হল

পূর্বঘোষিত সিদ্ধান্ত ও নিয়ম অনুযায়ী গত রোববার পবিত্র ওমরাহ পালন শুরু হচ্ছে। প্রথম ধাপে সৌদি আরবে অবস্থানকারী স্থানীয় ও প্রবাসীরা নির্ধারিত নিয়ম ও শর্ত পালন সাপেক্ষে ওমরাহ পালনের সুযোগ পাচ্ছেন। করোনা মহামারির কারণে প্রায় সাত মাস বন্ধ ছিল ওমরাহ।

সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ–বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আরব নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মুসলমানদের অন্যতম দুই পবিত্র মসজিদের জেয়ারত ও ওমরাহ পালনের জন্য প্রথম ধাপে প্রতিদিন ছয় হাজার মুসল্লি সুযোগ পাবেন। দিনে ১২টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে ওমরাহ ও জেয়ারতের কাজ সম্পন্ন করতে হবে। প্রতি গ্রুপে ৫০০ ব্যক্তি অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

ওমরাহ পালনের জন্য মুঠোফোন অ্যাপ্লিকেশন ‘ইটার্মা’র মাধ্যমে আবেদন করতে হয়েছে। মহামারি করোনাভাইরাসের মধ্যে সীমিত পরিসরে ওমরাহ হজ পালনের জন্য সৌদি আরব সরকার এ অ্যাপ চালু করেছে। গত ২৭ সেপ্টেম্বর মুঠোফোন অ্যাপ্লিকেশন ইটার্মার মাধ্যমে ওমরাহ পালনের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়।

পবিত্র ওমরাহ চলাকালে পবিত্র নগরী মক্কার কাবা শরিফের পুরো আঙিনা প্রতিদিন ১০ বার জীবাণুমুক্ত করার কার্যক্রম চালানো হবে। ওমরাহ পালনে কাবা চত্বরে যাওয়ার আগে প্রত্যেক ওমরাহ পালনকারীকে জীবাণুমুক্ত করা হবে। প্রত্যেককে বোতলজাত জমজমের পানিও সরবরাহ করা হবে।

পবিত্র হজ ছাড়া সারা বছর ওমরাহ করেন মুসলমানরা। তবে করোনা মহামারির কারণে প্রায় ছয় মাস বন্ধ ছিল ওমরাহ। আর করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়ায় এবার পবিত্র হজ পালন করা হয়নি।

সৌদি আরব জানায়, করোনা পরিস্থিতি মূল্যায়ন ও বিশ্বজুড়ে মুসলমানদের পবিত্র ওমরাহ পালনের আকাঙ্ক্ষার আলোকে ওমরাহ পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মুসল্লিদের ওমরাহ পালনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি ও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেবে দেশটি। তবে ওমরাহ পালনকারীরা কাবা চত্বরে তাওয়াফ সম্পন্ন করলেও হাজরে আসওয়াদ স্পর্শ বা চুম্বনে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। কাবা শরিফের বাইরে অস্থায়ী প্রাচীরের বাইরে থেকে তাওয়াফ সম্পন্ন করতে হবে।

সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, এবার চার ধাপে হবে ওমরাহ। প্রথম ধাপে সৌদি আরবে থাকা দেশটির নাগরিক ও বিদেশিরা পবিত্র ওমরাহ পালনের অনুমতি পাবেন। এ ধাপে প্রতিদিন প্রায় ছয় হাজার মুসল্লিকে ওমরাহ পালনের অনুমতি দেওয়া হবে। দ্বিতীয় ধাপে ১৮ অক্টোবর থেকে প্রতিদিন ওমরাহ পালন করতে পারবেন ১৫ হাজার মুসল্লি। আর নামাজ আদায় করতে পারবেন ৪০ হাজার মুসল্লি। তৃতীয় ধাপে ১ নভেম্বর থেকে সৌদির বাইরের মুসল্লিসহ প্রতিদিন ২০ হাজার মুসল্লি ওমরাহ আর ৬০ হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন। চতুর্থ ধাপে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে স্বাভাবিক সময়ের মতো মসজিদুল হারাম ও নববীতে নামাজ আদায় করতে পারবেন মুসল্লিরা। করোনার ঝুঁকি পুরোপুরি দূর হয়ে গেলে চতুর্থ ধাপ শুরু হবে। এ ধাপে পবিত্র কাবা শরিফ স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরবে।

লগইন করুন


পাঠকের মন্তব্য ( 0 )