প্রথমবারের মতো চাঁদে যাচ্ছেন কোনো নারী

প্রকাশিত: ৩রা অক্টোবর ২০২০ ১২:০০:৪৩ | আপডেট: ৩রা অক্টোবর ২০২০ ১২:০০:৪৩ 16
প্রথমবারের মতো চাঁদে যাচ্ছেন কোনো নারী

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ২০২৪ সালেই ইতিহাসে প্রথমবারের মতো চাঁদের বুুকে পা রাখতে যাচ্ছে কোনো নারী। তবে সেই সৌভাগ্যময়ী নারী কে হবে তা এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। মূলত দ্বিতীয়বারের মতো চাঁদে অভিযানের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা। এবার তারা মোট দুই জন নভোচারীকে পাঠাবে। যার মধ্যে একজন নারী।

২ হাজার ৮০০ কোটি ডলার ব্যয়ের (২৮ বিলিয়ন ডলার) এই প্রকল্পটির নাম দেয়া হয়েছে আর্টেমিস। সে জন্য ৩২০ কোটি ডলারের একটি তহবিল কংগ্রেসের কাছে চেয়েছে নাসা। সময়মতো সেটি পেয়ে গেলে পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০২৪ সালেই অভিযান সফল করা সম্ভব। কারণ নির্ধারিত সময়ে চাঁদের বুকে নামতে হলে আগে একটা অবতরণ ব্যবস্থা তৈরি করতে হবে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নভোচারীরা অ্যাপোলোর মতো একটি ক্যাপসুলে ভ্রমণ করবেন। যেটির নাম দেয়া হয়েছে ওরিয়ন, আর এসএলএস নামে একটি রকেট সেটি উৎক্ষেপণ করবে।

এ বিষয়ে নাসার প্রশাসক জিম ব্রাইডেনস্টাইন বলেন, প্রকল্পটির জন্য আগামী চার বছরে নাসার ব্যয় ধরা হয়েছে ২৮ বিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে রয়েছে এসএলএস উৎক্ষেপণের খরচ, ওরিয়ন বাবদ সব ব্যয়, চাঁদে মানুষের নামার খরচ এবং নভোচারীদের মহাকাশ স্যুটের জন্য যাবতীয় সকল খরচ।

তিনি বলেন, অবতরণ ব্যবস্থা তৈরি করতে মার্কিন কংগ্রেস এবং সিনেটের কাছে এই মুহূর্তে ৩২০ কোটি ডলার চেয়ে আবেদন জানিয়েছি। এই অর্থ ২০২১ সালে আমাদের হাতে আসতে হবে। যদি তা সময়মতো না পাই তাহলে ২০২৪ সালের মধ্যে চাঁদে দ্বিতীয়বারের মতো অবতরণের লক্ষ্য অর্জন করা সম্ভব হবে না।

এর আগে ২০১৯ সালের জুলাই মাসে সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে নাসার এই প্রশাসক জানিয়েছিলেন, চাঁদের বুকে পদচারণাকারী প্রথম নারী হবেন তিনি যার মহাকাশ ভ্রমণের অভিজ্ঞতা আছে। যিনি ইতোমধ্যেই কোনো আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে গেছেন। এক্ষেত্রে নভোচারী গোষ্ঠীর মধ্য থেকেই কাউকে বেছে নেয়া হবে।

লগইন করুন


পাঠকের মন্তব্য ( 0 )